শনিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
শনিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
শনিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ ইং

শরীয়তপুরের জাজিরায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত, আহত ২০

শরীয়তপুরের জাজিরায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে একজন নিহত, আহত ২০

শরীয়তপুর প্রতিনিধি।।শরীয়তপুরের জাজিরায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে রিয়াজ মাদবর (১৮) নামে একজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আরো ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (২৭ জুন) সন্ধ্যায় জাজিরা উপজেলার সেনেরচর ইউনিয়নের চর ধীপুর সাকিমালী মাদবর কান্দি( বালিয়া কান্দি) গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানিয় সুত্রে জানা যায় , জাজিরা উপজেলার সেনেরচর ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামীলীগ নেতা মন্টু বেপারীর সমর্থকদের সাথে এমদাদ মাদবর,করিম মাষ্টার গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে । শনিবার মন্টু বেপারীর সমর্থক ও করিম মাস্টার ও এমদাদ মাদবরের সমর্থকদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। খবর পেয়ে মন্টু বেপারী, হারুন বেপারী লোকজন নিয়ে করিম মাস্টারদের উপর হামলা করে। হামলায় ঘটনা স্থলে করিম মাস্টারের সমর্থক রিয়াজ মাদবর (১৮) মারা যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
আশংকাজনক অবস্থায় আবুল বাশার বেপারী, তানজিল মাদবর ও দেলোয়ার মাদবরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
বাকী আহতদের জাজিরা উপজেলাসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে করিম মাস্টার বলেন, মন্টু বেপারী ও তার লোকজন আমার সমর্থকদের উপর এলোপাথারি গুলি করে। এতে রিয়াজ মাদবর নামে একজন ঘটনাস্থলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান। আরও ১০/১২ জন গুলিবিদ্ধ ও ২০ জন আহত হয়েছে।

জাজিরা থানার অফিসার ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম সরকার বলেন, জাজিরা থানাধীন সেনেরচর বালিয়া কান্দী এলাকায় মন্টু বেপারী ও করিম মাস্টারের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে একজন নিহত হয়েছে। নিহতের পরিবার এখনো অভিযোগ দায়ের করেনি। এখন কাউকে আটক করা যায়নি। হত্যাকারীদের আটকের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য